লক্ষ্মীপুর সংসদীয় আসন-২ রায়পুর উপনির্বাচনে এড.নয়নের নিরঙ্কুশ বিজয়
English

লক্ষ্মীপুর সংসদীয় আসন-২ রায়পুর উপনির্বাচনে এড.নয়নের নিরঙ্কুশ বিজয়

লক্ষ্মীপুর সংসদীয় আসন-২ রায়পুর উপনির্বাচনে এড.নয়নের নিরঙ্কুশ বিজয়

লক্ষ্মীপুর সংসদীয় আসন-২ রায়পুর উপনির্বাচনে এড.নয়নের নিরঙ্কুশ বিজয়
লক্ষ্মীপুর সংসদীয় আসন-২ রায়পুর উপনির্বাচনে এড.নয়নের নিরঙ্কুশ বিজয়

বহু জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে আলোচিত-সমালোচিত লক্ষ্মীপুর সংসদীয় আসন-২ রায়পুর উপনির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। এতে আওয়ামী লীগ মনোনীত জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী বেসরকারীভাবে ভোট কেন্দ্রের সর্বশেষ ফলাফল অনুযায়ী বিপুল ভোটে এগিয়ে রয়েছেন। অপরদিকে তার নিকটতম প্রার্থী জাতীয় পার্টি মনোনীত শেখ ফায়িজউল্লাহ শিপনের অধিকাংশ কেন্দ্রে এজেন্ট খুঁজে পাওয়া যায়নি

সোমবার লক্ষ্মীপুর সংসদীয় আসন-২ রায়পুর উপনির্বাচনে সদরের ৯টি ইউনিয়ন ও রায়পুরের পৌরসভাসহ ১১টি ইউনিয়নের সর্বমোট ১৩৬টি ভোট কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। কমলনগর উপজেলার তোরাবগঞ্জ, চরফলকন, হাজিরহাট, রামগতি উপজেলার চর পোড়াগাছা ও চরবাদাম ইউনিয়নের মোট ৫৭টি ভোট কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।

রায়পুর উপনির্বাচনে ভোট কেন্দ্রে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি বলে জানা গেছে এবং শান্তিপূর্ণভাবে দিনভর ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। তবে কমলনগর উপজেলার তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নের তোরাবগঞ্জ বাজারে আওয়ামীলীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকুর গাড়িবহরে দুর্বৃত্তরা হামলা চালিয়ে গাড়ি ভাঙচুর করে। এর প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক উপজেলা আওয়ামী লীগ মিছিল বের করে এবং দুর্বৃত্তদের শাস্তি দাবি করে।

সোমবার (২১ জুন) সকাল ৮টা থেকে ১৩৬ কেন্দ্রে ইলেক্ট্রিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ হয়। কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থায় ঝুকিপুর্ণ ৮৪ কেন্দ্রে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ হয়েছে।

লক্ষ্মীপুরে সকাল থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হয়েছিলো। তবুও রায়পুর উপজেলার পৌরসভাসহ ১০ ইউনিয়নের ৭৩ কেন্দ্র ও সদর উপজেলার ৯ টি ইউনিয়নে ৬৩ কেন্দ্রে ইভিএমে ভোট সম্পর্ণ হয়।

এদিকে রায়পুর উপজেলাকে বিএনপির ঘাঁটি বলে দাবি করলেও নির্বাচনে অংশ নেয়নি বিএনপি। লক্ষ্মীপুর জেলা-আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়নের সঙ্গে জাতীয় পার্টির প্রার্থী শেখ মো. ফায়িজ উল্যা শিপনের নিশ্চিত পরাজয় বলছেন স্থানীয় জনগণ।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, এ আসনে লক্ষ্মীপুর সদরের নয়টি ইউনিয়ন, রায়পুর উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা রয়েছে। ইভিএমের মাধ্যমে ১৩৬টি ভোটকেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। সুষ্ঠু ভোটগ্রহণের লক্ষ্যে ১৯ জন ম্যাজিস্ট্রেটের অধীনে পুলিশের পাশাপাশি ১০ প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাব-১১ নির্বাচনী এলাকায় মোতায়েন রয়েছে। এ আসনে মোট ৪ লাখ ২ হাজার ৯৬৩ জন ভোটার রয়েছে।

এড. নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন বলেন, সরকারের উন্নয়নে সুফলভোগী হওয়ায় ভোটাররা উৎসবমুখর পরিবেশে এসে ভোট দিয়েছেন। নৌকার পক্ষে ভোটারদের গণজোয়ার ছিলে। অসমাপ্ত কাজগুলো শেষ করার জন্য জনগণ নৌকায় ভোট দিয়েছে। ঘরে ঘরে গিয়ে আমাদের নেতাকর্মীরা ভোট চেয়ে এনেছে।

লক্ষ্মীপুর-২ আসনে উপ-নির্বাচনে দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ তোফায়েল হোসেন বলেন, সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ হয়েছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের অধীনে আইন-শৃৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সার্বক্ষণিক টহলে ছিলো। কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। ভোটারদের উপস্থিতি ভালো ছিলো সঠিকভাবে ভোটগ্রহণে প্রিসাইডিং ও পোলিং অফিসারগন কাজ করেন।

প্রসঙ্গত, কাজী শহিদুল ইসলাম পাপুল গত বছরের ৬ জুন কুয়েতে মানব ও অর্থপাচারের অভিযোগে গ্রেফতার হন। চলতি বছরের ২৮ জানুয়ারি ঘুষ কেলেংকারি ঘটনায় কুয়েতে পাপুলের ৪ বছর সাজা ও অর্থদণ্ড হয়। পরবর্তীতে পাপুলের ৪ বছর থেকে সাজা বাড়িয়ে ৭ বছর করেছেন আদালত। এর পরিপ্রেক্ষিতে ২২ ফেব্রুয়ারি শূন্য হয় আসনটি। ৩ মার্চ তফসিল ঘোষণা করে ১১ এপ্রিল নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়। করোনা পরিস্থিতি খারাপ হওয়ায় ১ এপ্রিল নির্বাচন স্থগিত করা হয়। পরবর্তীতে আবারও ২১ জুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়।

অ আ আবীর আকাশ, লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি

শেয়ার করুন


Advertisement




Ads Manager

All Rights Resrved & Protected