সমীক্ষা বলছেঃ ঠোঁট বা জিভ শুকিয়ে যাওয়া করোনার উপসর্গ হতে পারে সমীক্ষা বলছেঃ ঠোঁট বা জিভ শুকিয়ে যাওয়া করোনার উপসর্গ হতে পারে

রবিবার, ১৩ Jun ২০২১, ০৮:০০ পূর্বাহ্ন







সমীক্ষা বলছেঃ ঠোঁট বা জিভ শুকিয়ে যাওয়া করোনার উপসর্গ হতে পারে

সমীক্ষা বলছেঃ ঠোঁট বা জিভ শুকিয়ে যাওয়া করোনার উপসর্গ হতে পারে

শুকনো ঠোঁট করোনার লক্ষণ হতে পারে।

মহামারী সংক্রমণ আবার দ্রুত বাড়ছে। এতে বহু মানুষ যেমন আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন, তেমনই এমন মানুষও রয়েছেন, যাঁরা আক্রান্ত হলেও, তাঁদের মধ্যে সেরকম ভাবে কোনও উপসর্গ দেখা যাচ্ছে না। নিশ্চিন্তেই ঘুরে বেড়াচ্ছেন তাঁরা। ফলে ভাইরাসটি আরও ছড়াচ্ছে।

বিভিন্ন গবেষণাপত্রে দাবি করা হয়েছে, মুখের ভিতরের কয়েকটি পরিবর্তন দেখে বোঝা যেতে পারে যে করোনা হয়েছে কি না। শুধু স্বাদ বা গন্ধ চলে যাওয়া নয়, করোনার প্রাথমিক উপসর্গের মধ্যে এগুলিও থাকতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

চলুন দেখে নেওয়া যাক, কী কী সেই উপসর্গঃ 

  • মুখের ঘায়ের ক্ষেত্রে: অনেকের ক্ষেত্রেই অন্য কোনও উপসর্গ না থাকা সত্ত্বেও কোভিডের কারণে মুখের ভিতর ঘা হতে পারে। বিশেষ করে তলার ঠোঁটের ভিতর দিতে, সাদা রঙের ঘা হতে পারে এই ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে।
  • শুকনো ঠোঁটের ক্ষেত্রে: মুখের ভিতর তো বটেই, অনেকের ক্ষেত্রে ঠোঁটও শুকিয়ে ফেটে যায় কোভিডের কারণে। এ ফলে খাবার চিবোতে অসুবিধা হয়। কিছুকিছু ক্ষেত্রে  লালাও শুকিয়ে যায়।
  • জিভের রং বদলের ক্ষেত্রে: অনেকের ক্ষেত্রেই করোনা ভাইরাসের কারণে জিভের রং বদলে যাচ্ছে। সাদা প্রলেপ পড়ছে জিভের উপর। একই সঙ্গে জিভ অত্যন্ত স্পর্শকাতর হয়ে যাচ্ছে। একটু গরম কিছু খেলেই জ্বালা করছে।

করোনা আক্রান্ত অনেক মানুষই এখন এসব উপসর্গ টের পাচ্ছেন না। এই সব ছোট ছোট পরিবর্তনও পারে তাঁদের রোগটি সম্পর্কে সচেতন করতে যা একপ্রকার সতর্ক বলা যেতে পারে। তাই যে কোনও ধরনের ছোট উপসর্গকেও এখন আলাদা করে গুরুত্ব দিতে বলছেন বিশেষজ্ঞরা। এমন কিছু হলেই তারা বলছেন, চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে।

শেয়ার করুন




All Rights Resrved & Protected