লাইফস্টাইল

গরমে চুলের যত্ন

তীব্র গরমে সবার জীবন অতিষ্ঠ। ঘরে কিংবা বাইরে কোথাওই যেন রোদ্রের তাপ থেকে মুক্তি নেই। রোদে ত্বকতো নষ্ট হচ্ছেই সাথে নষ্ট হচ্ছে চুল। যেখানে তাপ আছে সেখানে হচ্ছে ঘাম আর এই ঘামই চুল চিটচিটে বা অয়েলি হয়ে যাওয়ার প্রধান কারণ। গরমে ঘাম ও বাতাসের ধূলাবালির কারণে ব্যাকটেরিয়া বা ফাঙ্গাস-এর জন্ম হয়। আর এ থেকে মাথার ত্বকে ফুসকুড়ি বা চুলকানি হতে পারে। তাছাড়াও মাথায় খুশকি, চুলে রুক্ষতা , চুল মলিন হয়ে যায় এমন কী চুলও পড়তে শুরু করে! তাই গরমে চাই চুলের বাড়তি যত্ন।

চুল ঘেমে গেলে চুলের গোড়ায় চুলকায় ও চুল টানার কারণে গোড়া নরম হয়ে চুল পড়তে থাকে। বাইরে বাতাসে ধূলাবালির কারণে চুলে খুশকি বাড়তে থাকে। তাই এ সময় সবচেয়ে জরুরী হলো চুল পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা। তাই এ সময় প্রতিদিন চুল শ্যাম্পু করতে হবে। শ্যাম্পুর কাজ হচ্ছে চুল পরিচ্ছন্ন করা। তাছাড়া চুলে শুধু শ্যাম্পু করলেই চলবে না সাথে নিতে হবে বিশেষ পরিচর্যা। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক এই গরমে চুলের যত্নে কি কি করনীয়ঃ

গরমে চুলের যত্নে ৮টি টিপস-

১) চুল শুকিয়ে নিন ফ্যানের বাতাসে-                                                                                                                        গরমে চুলের যত্ন নেবার প্রথম শর্ত, বাইরে থেকে ঘরে ফিরে চুলের গোড়া ঘেমে গেলে ফ্যানের ঠান্ডা বাতাসে চুলটা শুকিয়ে নিতে হবে। কোনোভাবেই ঘামে ভেজা চুল বেঁধে রাখা যাবে না।

২) প্রতিদিন শ্যাম্পু করুন-                                                                                                                                                  যাদের প্রতিদিন বাইরে যেতে হয় তাদের অবশ্যই প্রতিদিন চুলে শ্যাম্পু করতে হবে এবং চুলে শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার লাগানো উচিত। চুলগুলোকে প্রতিদিন বেশি পানি দিয়ে ধুতে হবে। কারণ খেয়াল রাখতে হবে শ্যাম্পু করার পর চুলের গোড়ায় যেন বাড়তি শ্যাম্পু লেগে না থাকে।

৩) প্রতিদিন চুলে তেল দিন-                                                                                                                                                প্রতি রাতে চুলে তেল লাগিয়ে রাখতে পারেন। এটি চুলের ডিপ কন্ডিশনিং-এর কাজ করবে। চুলে তেল লাগানোর আগে তেলের সঙ্গে একটু লেবুর রস মিশিয়ে নিলে চুল খুশকি মুক্ত থাকবে। চুল পড়া কমাতে আমলকীর রস ও ক্যাস্টর অয়েল, নারিকেল তেলের সাথে মিশিয়ে চুলের গোড়ায় মালিশ করুন। পরের দিন শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে ফেলুন! গরমে চুলের যত্ন নিতে গিয়ে তেলকে বাদ দিলে হবে না!

৪) মাথা ঠান্ডা রাখতে অ্যালোভেরার প্যাক ব্যবহার করুন-                                                                                              এই গরমে ঘৃতকুমারী (অ্যালোভেরা) মাথা ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করবে এবং এটি চুল পড়াও কমাবে। অ্যালোভেরা-এর রস লাগিয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে চুল পরিষ্কার করে ফেলুন। ঘৃতকুমারীর রস, মেথি গুঁড়া ও ত্রিফলা (আমলকী, হরীতকী ও বহেরা ভিজানো পানি) একসঙ্গে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করতে পারেন। এতে চুল পড়া কমাতে সাহায্য করবে এবং চুলের স্বাস্থ্য ভালো করবে।

৫) চুল ময়েশ্চারাইজ করতে মেহেদি ও টক দইয়ের প্যাক ব্যবহার করুন-                                                                    চুলের পরিচর্যার জন্য টক দই, মেহেদি পাতা, মেথি গুঁড়া ও লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এটি চুলে ৩০ মিনিটের মত লাগিয়ে শ্যাম্পু করে ফেলতে হবে। টক দই চুলকে ময়েশ্চারাইজ করবে। মেথি গুঁড়া খুশকি দূর করে এবং চুল ঝলমল করবে লেবুর রস। এটি অন্তত সপ্তাহে এক দিন করা উচিত।

গরমে চুলের যত্ন নিতে মেহেদি ও টক দইয়ের প্যাক 
গরমে চুলের যত্ন নিতে মেহেদি ও টক দইয়ের প্যাক

৬) রোদে পোড়া লালচে চুলের জন্য কলা ও আমলকীর প্যাক ব্যবহার করুন-                                                        পাকা কলা, আমলকীর রস, মধু এবং মেথি গুঁড়া একসঙ্গে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে চুলে লাগাতে পারেন। এটি একই সঙ্গে চুল নরম করবে এবং রোদে পুড়ে লালচে হয়ে যাওয়া থেকে বাঁচাবে।

৬) চুল হালকা করে বাঁধুন-
এই গরমের সময় চুলটা আঁটসাঁট করে না বেঁধে পাঞ্চ ক্লিপে হালকা করে আটকে নিন। আর এমন হেয়ার স্টাইল করুন যেটি গরমের সময় আরামদায়ক হয়।

৭) হেয়ার ড্রায়ারে চুল শুকাবেন না-
এই গরমে চুলতো ঘামেই। তাই বলে গরমে চুলের যত্ন নিতে গিয়ে চুল শুকাতে বা ঘাম শুকাতে হেয়ার ড্রায়ার-এর গরম বাতাস ব্যবহার করা যাবে না। চুলের আগা ফেটে যাওয়া হেয়ার ড্রায়ার-এর গরম বাতাস প্রধান কারণ।

৮) ছাতা বা স্কার্ফ ব্যবহার করুন-                                                                                                                              গরমে চুলে যত্ন নিতে রোদে বাইরে বের হলে অবশ্যই ছাতা বা স্কার্ফ ব্যবহার করুন। এতে চুল কড়া রোদ ও অতিরিক্ত ধূলোবালি থেকে রক্ষা পাবে।

Back to top button
%d bloggers like this: