ফিচাররকমারি

বিস্ময়কর কেভ অব হরর!

মরুভূমির মাঝে একটি গুহা। নাম ‘কেভ অব হরর’ অর্থাৎ আতঙ্কের গুহা। জনমানবহীন মরুভূমির ওই গুহা বহন করে আসছে এক মর্মান্তিক ইতিহাস। মরুভূমির শুষ্ক বায়ুতে মমি হয়ে সংরক্ষিত রয়ে গেছে সেই ইতিহাসেরই কিছু অংশ।

এক সময় রোমান সাম্রাজ্যের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ইহুদিরা বিদ্রোহ ঘোষণা করলো। সেই বিদ্রোহে প্রাণ হারায় বহু ইহুদি।অনেককে এক গুহার মধ্যে মৃত্যুর জন্য ছেড়ে দিয়ে বাইরে থেকে আটকে দেওয়া হয়েছিল গুহার মুখ। অনাহারে থাকতে থাকতে এক এক করে বন্দি বিদ্রোহীদের সকলেই মারা যান।

১৯৬০ সালে এই গুহা থেকে এমন ৪০টি নরকঙ্কাল উদ্ধার করা হয়। সেই কঙ্কাল গবেষণা করেই জানা যায় ইহুদি বিদ্রোহীদের  মর্মান্তিক পরিণতির কথা।সেই থেকেই গুহার নামকরণ হয় ‘কেভ অব হরর’। ওই যুদ্ধে প্রায় ৫ লাখ ইহুদি মারা গিয়েছিলেন। মৃত্যুভয়ে এলাকা ছেড়ে পালিয়েছিলেন অনেকে।

গুহাটি  অবস্থিত ইজরায়েলের জুডিয়ান মরুভূমিতে। জুডিয়ান মরুভূমিতে এই যুদ্ধ হয়েছিল ১৩২ এবং ১৩৫ খ্রিস্টাব্দের মাঝামাঝি সময়ে।

গুহার ভিতর থেকে পাওয়া ছোট মেয়ের কংকাল

বিশেষজ্ঞদের ধারনা, গুহার পাথরের ভাঁজে ভাঁজে এমন আরও মর্মান্তিক ইতিহাস চাপা পড়ে রয়েছে। সম্প্রতি সেখান থেকে উদ্ধার হল একটি শিশুর কঙ্কাল। যার বয়স ৬ হাজার বছর। গুহার মধ্যে দুটো পাথরের ভিতরে চাপা পড়েছিল কঙ্কালটি।সম্প্রতি একদল গবেষক পাথর সরিয়ে সেটি উদ্ধার করেছেন। গবেষণার পর জানা গিয়েছে, সেটি এক বালিকার কঙ্কাল। মৃত্যুর সময় যার বয়স ছিল ৬ থেকে ১২ বছরের মধ্যে।তার গায়ে চাপা দেওয়া ছিল কম্বলের মতো মোটা চাদর। এই চাদর দিয়ে তার মাথা এবং বুক চাপা দেওয়া থাকলেও পা দু’টি অনাবৃতই ছিল। এত বছর আগে এই ধরনের চাদরের ব্যবহার থেকে বিস্মিত গবেষকরা।

উদ্ধারকৃত প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনসমূহ

এ ছাড়া ওই গুহা থেকে ১০ হাজার বছরের পুরনো একটি ঝুড়ি পাওয়া গিয়েছে। গুহা থেকে কিছু পুরনো মুদ্রা এবং জামাকাপড়ও উদ্ধার হয়েছে।

উদ্ধার হওয়া ৬ হাজার বছরের পুরনো শিশুর কঙ্কাল এবং ১০ হাজার বছরের পুরনো ঝুড়ি দেখে গবেষকদের অনুমান, ওই সময়ে এই গুহাতে বাস ছিল মানুষের। আর ওই পুরনো মুদ্রা এবং জামাকাপড়গুলি ইহুদি-রোমানদের যুদ্ধের সময়কার। গুহা থেকে প্রাপ্ত যাবতীয় প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনসমূহ জিনিসপত্র থেকে ওই সময়ে মানুষের জীবনযাত্রা সম্বন্ধে বিশদ ধারণা পাওয়া যাবে বলে মনে করছেন গবেষকরা।সম্প্রতি ওই অনুসন্ধানের সময় গুহা থেকে মিলেছে পুরনো নথির ছেঁড়া অংশও। যাতে মূলত ইহুদি-রোমানদের ওই যুদ্ধ সংক্রান্ত নানা তথ্য রয়েছে। তার অক্ষরগুলিও সমসাময়িক নিদর্শনসমূহ থেকে অনেকটাই আলাদা। যা দেখে বিস্মিত প্রত্নতাত্ত্বিক গবেষকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
%d bloggers like this: