ফের ৫ দিনের রিমান্ডে হেফাজত নেতা মামুনুল

হেফাজত নেতা মামুনুল
হেফাজত নেতা মামুনুল

চলতি বছরের মার্চে বায়তুল মোকাররম মসজিদ প্রাঙ্গণে হেফাজতের সহিংসতার ঘটনায় করা দু’টি মামলায় হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সদ্য বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সাধারণ সম্পাদক মামুনুল হককে এক মামলায় ৩ দিন আরেক মামলায় ২ দিন মোট ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (০৪ মে) ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদার শুনানি শেষে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামুনল হকের আইনজীবী সৈয়দ জয়নাল আবেদীন মেজবাহ।

আজ ৭ দিনের রিমান্ড শেষে তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় চলতি বছরের মার্চে বায়তুল মোকাররমে হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় পল্টন থানায় করা মামলায় (৬০(৩)২১) মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তাকে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন পুলিশ। শুনানি শেষে বিচারক ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

অপরদিকে চলতি বছরের মার্চে বায়তুল মোকাররমে হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় পল্টন থানায় করা মামলায় (৫৭(৩)২১) মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তাকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে নিতে আবেদন করেন পুলিশ। শুনানি শেষে বিচারক ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন বিগ আদালত।

এর আগে গত ২৬ এপ্রিল মতিঝিল ও পল্টন থানার নাশকতার দুই মামলায় মামুনুলের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। ১৯ এপ্রিল মোহাম্মদপুর থানায় হত্যার উদ্দেশ্যে আঘাত করে গুরুতর জখম, চুরি মামলায় সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

উল্লেখ্য, ১৮ এপ্রিল মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। ব্যক্তিগত জীবন আর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরের বিরোধিতা করে হেফাজতের আন্দোলনসহ নানা কারণে আলোচনার কেন্দ্রে আসেন মাওলানা মামুনুল হক।

নরেন্দ্র মোদির সফরের সময় ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত সহিংসতায় দেশে ১৭ জনের মৃত্যু হয়। এসব সহিংসতার ঘটনায় সারাদেশে প্রায় অর্ধশতাধিক মামলা হয়েছে। মামুনুল হককে এসব ঘটনার মূল ইন্ধনদাতা মনে করছে পুলিশ।