বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাঙ্গার প্রতিবাদ ন্যাপের
English

বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাঙ্গার প্রতিবাদ ন্যাপের

বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাঙ্গার প্রতিবাদ ন্যাপের

কুষ্টিয়ায় বৃটিশ বিরোধী আন্দোলনের অগ্রনায়ক বিপ্লবী বাঘা যতীনের ভাস্কর্য ভাঙ্গার তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও ক্ষোভ জানিয়েছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ।

শুক্রবার (১৮ ডিসেম্বর) ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া এর প্রতিবাদ জানিয়ে গণমাধ্যমে এক বিবৃতি পাঠান।

বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘দেশ বিরোধী গোষ্টি ভাস্কর্য ভাঙ্গার মধ্য দিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করার ষড়যন্ত্র চলছে। তারা বাংলাদেশের হাজার বছরের ঐতিহ্য অসাম্প্রদায়িক চেতনাকে ধ্বংস করতে চাচ্ছে।’

তারা বলেন, বিজয়ের মাসে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙ্গার পর ব্রিটিশ-বিরোধী বিপ্লবী নেতা যতীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় অর্থাৎ ‘বাঘা যতীন’-এর ভাস্কর্য ভাঙ্গার দু:সাহস কারা দেখায়। তারা কি আসলে বাংলাদেশের অস্তিত্বের পক্ষে না নাকি বিপক্ষে তা ভেবে দেখতে হবে। ভারতে ব্রিটিশ-বিরোধী সশস্ত্র আন্দোলনের একজন বীর সেনানী ‘বাঘা যতীন’ আমাদের ইতিহাসের অংশ। আর এই ইতিহাস মুছে ফেরার চক্রান্ত যারা করে তারা দেশ বিরোধী।

নেতৃদ্বয় বলেন, মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টানসহ সকল সম্প্রদায়ের মিলিত রক্তস্রোতের বিনিময়ে বাংলাদেশের জন্ম হয়েছিল। লাল সূর্য খচিত সবুজ পতাকার জন্ম হয়েছে বাংলাদেশ। আজকে আমরা মুসলমান হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান যেভাবে সুন্দর করে বসেছি আমাদের বাংলাদেশও ঠিক এরকম সুন্দর।

তারা বলেন, যুগ যুগ ধরেই বাংলাদেশ সকল ধর্মের মানুষ সম্প্রীতির সেতুবন্ধনে একসাথে বসবাস করে আসছে। ভবিষ্যতেও সেই ধারা অব্যাহত থাকবে। বাংলাদেশে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে দেশ এবং বিদেশ থেকে। ‘বাঘা যতীন’ ভাস্কর্য ভাঙ্গা সেই ষড়যন্ত্রেরই অংশ।

নেতৃদ্বয় বলেন, কে কোন ধর্মের এটি বিবেচ্য বিষয় নয়, বিবেচ্য আমরা সকলে এ মাটির সন্তান। তাই সকলকে স্বজাগ থাকতে হবে, যাতে কেউ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করে দেশটাকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিনত করতে না পারে। সেই লক্ষ্যে যেকোনো অশুভ শক্তির ব্যাপারে আমাদের সকলকে সতর্ক থাকতে হবে।

শেয়ার করুন


Advertisement




Ads Manager

All Rights Resrved & Protected