কোন বলে জয়ী ক্রিকেট?
English

ব্রেকিং নিউজ
কোন বলে জয়ী ক্রিকেট?

কোন বলে জয়ী ক্রিকেট?

টি-টোয়েন্টি যুগে টেস্ট ক্রিকেটের ঐতিহ্যকে টিকিয়ে রাখতে নানা ধরনের পরিবর্তন করছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। দিবা-রাতের টেস্ট মানেই গোলাপি বলের খেলা। আর এই গোলাপি রহস্যেই বার বার ধাঁধিয়ে যান ব্যাটসম্যানরা।

লাল বলের সঙ্গে রঙ ছাড়া কোথায় তফাৎ গোলাপি বলের? দুটো বলের মধ্যে আকার বা ওজনে খুব বেশি তফাৎ হয় না কারণ আইসিসির নির্দিষ্ট করে দেওয়া মাপেই তৈরি করা হয় ক্রিকেট বল। লাল বলের ক্ষেত্রে মেশিনে সেলাই করা হয় সাদা সুতা দিয়ে। গোলাপি বলের ক্ষেত্রে ব্যবহার হয় কালো সুতা এবং সেই সেলাই হয় হাতে। তবে বলের রঙের তফাৎই আসল তফাৎ। লাল বলের ওপর থাকে মোমের আস্তরণ। যা সময়ের সঙ্গে ধীরে ধীরে বলের সঙ্গে মিশে যায়। সুবিধা করে দেয় রিভার্স সুইংয়ের জন্য।
কিন্তু গোলাপি বলে মোম নয় থাকে এক ধরনের বার্নিশ। যা সহজে বল থেকে ওঠে না। এর ফলে প্রায় ৪০ ওভার খেলা হয়ে গেলেও গোলাপি বল থাকে নতুনের মতোই। খেলায় কী তফাৎ গড়ে দিচ্ছে এই পরিবর্তন?

লাল বলের ক্ষেত্রে প্রথম ১৫ ওভারের পর থেকেই মোমের আস্তরণ মিশতে থাকে বলের সঙ্গে। রিভার্স সুইং পেতে সুবিধা হয় বোলারদের। গোলাপি বলে পেসাররা প্রথম ১০-১৫ ওভারে সুইং পায় অনায়াসেই। কারণ বলের বার্নিশ সহজে ওঠে না। এর ফলে রিভার্স সুইং পেতে দেরি হলেও পেসারদের জন্য বেশ মনোরম পরিবেশ তৈরি হয়ে থাকে শুরু থেকেই।

গোলাপি বল কি তবে শুধুই পেসারদের জন্য? বাংলাদেশের বিপক্ষে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালির সেঞ্চুরি বা পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ডেভিড ওয়ার্নারের ট্রিপল সেঞ্চুরি সে কথা বলছে না। পাকিস্তানের আসাদ শাফিকের দুটো সেঞ্চুরি এসেছে গোলাপি বলে।

স্পিনারদের মধ্যে নাথান লায়ন, ইয়াসির শাহরা গোলাপি বলেও ব্যাটসম্যানদের ঘুম কেড়ে নিয়েছেন। বলের তফাৎ কিছুটা পেসারদের সাহায্য করলেও খেলাটা দিনের শেষে ক্রিকেট।

শেয়ার করুন


Advertisement




Ads Manager

All Rights Resrved & Protected