অন্যান্য

ছাত্রলীগ নেতা যাদব রায়ের দৃষ্টান্ত!

সংগঠনের প্রতি শ্রদ্ধা এবং সম্মান দেখিয়ে স্বীয় পদ থেকে স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নিয়েছেন ছাত্রলীগ নেতা যাদব রায়। তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কুমিল্লা উত্তর জেলার শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন।

যাদব রায় এর আগে কুমিল্লা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের হল এবং কলেজের বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করে সর্বশেষ ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে। এ বছরের জানুয়ারি মাসের ১৮ তারিখ বিয়ে করেন।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক স্ট্যাটাসে তিনি বলেন, আমি যাদব রায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একজন ক্ষুদ্রতম কর্মী হিসাবে কুমিল্লা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট ছাত্রলীগ থেকে আমার পথচলা। কুমিল্লা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট ছাত্রলীগের বিভিন্ন সময় হলের এবং কলেজ এর দায়িত্ব পালনের পর পর্যায়ক্রমে কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগ এর শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক হিসাবে দায়িত্বে আছি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর হাতে গড়া বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এর একজন ক্ষুদ্র কর্মী হিসাবে নিজেকে অনেক ধন্য মনে করি।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে স্বপ্ন নিয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ গঠন করেন, ছাত্রলীগের একজন ক্ষুদ্র কর্মী হিসাবে যখন যেখানে যে ইউনিটে দায়িত্ব পেয়েছি চেষ্টা করেছি নিজের শতভাগ মেধা এবং শ্রম দিয়ে প্রাণের সংগঠন এর জন্য কাজ করেছি। সর্বদা খেয়াল রেখেছি ব্যক্তি আমার কারণে যেন প্রানের প্রিয় সংগঠনের কোন কলঙ্ক না হয়। ছাত্ররাজনীতিতে সংগঠনকে কি দিতে পেরেছি তা আমার জানা নেই, তবে একজন ছাত্রলীগের কর্মী হিসাবে পেয়েছি অনেক আদর, সম্মান এবং ভালোবাসা।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্রের ২৩ এর (ক) নিয়ম অনুযায়ী বিবাহিত বলে আমার ছাত্রলীগের পদটি স্থগিত। বিগত সময়ে দায়িত্বরত অবস্থায় সংগঠনের  অনেক সহযোদ্ধাদের সাথে মন মালিন্য হয়েছে, যা হয়েছে তা কখনো নিজের স্বার্থের জন্য করিনি। তারপর ও সবার কাছে দু-হাত জোড় করে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি মনের অজান্তে ও যদি ভূল করে থাকি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।

অবশেষে বলতে চাই “রিক্ত আমি সিক্ত আমি দেওয়ার কিছু নাই- আছে শুধু ভালোবাসা দিয়ে গেলাম তাই”

ভালো থেকো প্রানের সংগঠন। অনেক অনেক ভালোবাসা, শ্রদ্ধা আর শুভকামনা রইলো।

তার এমন সিদ্ধান্তকে স্বাগত ও সাদুবাদ জানিয়েছেন শুভাকাঙ্খি সহ কুমিল্লার রাজনৈতিক মহলের নেতাকর্মীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
%d bloggers like this: